ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২৩ ৩:৫৭ অপরাহ্ণ || শতাব্দীর দৃষ্টিকোণ
অর্থনীতি শিরোনাম

বাংলাদেশকে ৫১০০ কোটি টাকা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক

করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় সক্ষমতা তৈরি ও বাংলাদেশের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে দু’টি প্রকল্পের আওতায় ৫ হাজার ১০০ কোটি টাকা (৬০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) ঋণ অনুমোদন করেছে বিশ্বব্যাংক। বৃহস্পতিবার (২০ মে) বিশ্ব ব্যাংকের সদর দফতর এই ঋণ অনুমোদন করা হয়। আজ শুক্রবার (২১ মে) বিশ্বব্যাংকের ঢাকা কার্যালয় থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

বিশ্ব ব্যাংক বলছে, এই ঋণ সহায়তায় বাংলাদেশের ১৭ লাখ ৫০ হাজার (১.৭৫ মিলিয়ন) দরিদ্র ও অরক্ষিত মানুষসহ যুবক, নারী, পিছিয়ে থাকা জনগোষ্ঠী, দেশে ফিরে আসা প্রবাসীদের সহায়তা করা হবে। পাশাপাশি করোনার মতো মহামারি মোকাবিলায়ও সক্ষমতা তৈরিতেও সহায়তা করা হবে।

এক্সেলেরাটিং অ্যান্ড স্ট্রেন্থেনিং স্কিলস ফর ইকোনমিক ট্রান্সফরমেশন (এএসএসইটি) প্রকল্প পাবে ৩০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এর মাধ্যমে ১০ লাখ তরুণ ও শ্রমিকরা ভবিষ্যৎ বাজার অনুযায়ী দক্ষতা অর্জন করতে পারবেন।

আর রেজিলেন্স, এন্টারপ্রিনিউরশিপ অ্যান্ড লাইভলিহুড ইম্প্রুভমেন্ট (আরইএলআই) প্রকল্পের জন্য বিশ্বব্যাংক অনুমোদন দিয়েছে ৩০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এই প্রকল্পের আওতায় এই অর্থ খরচ করা হবে সারাদেশের ২০টি জেলার ৩ হাজার ২০০ গ্রামের ৭ লাখ ৫০ লাখ দরিদ্র ও অরক্ষিত মানুষের জীবনমান উন্নয়নে।

বাংলাদেশ ও ভুটানে নিযুক্ত বিশ্ব ব্যাংকের ভারপ্রাপ্ত কান্ট্রি ডিরেক্টর ডানডান চেন এ বিষয়ে বলেন, ‘করোনার কারণে বাংলাদেশের হাজারো মানুষের জীবনযাপন ও কর্মক্ষেত্রে ব্যাঘাত ঘটেছে। বিশেষ করে নারী শ্রমিক, তরুণ ও বিদেশফেরত শ্রমিকদের। এই দুই প্রকল্পের গ্রামের দরিদ্র মানুষের সামনে যে কর্মবাজার তৈরি হচ্ছে, তার উপযোগী করে গড়ে তুলতে এবং উদ্যোক্তা হওয়ার ক্ষেত্রে সহায়তা করবে। নারী ও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীও এই সহায়তা পাবে।’

Similar Posts

error: Content is protected !!