জানুয়ারি ২৮, ২০২৩ ৯:২২ অপরাহ্ণ || শতাব্দীর দৃষ্টিকোণ
রাজনীতি শিরোনাম

ভাস্কর্য ইস্যুতে ফেসবুকে স্ট্যাটাস, ঢাবি ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাস্কর্যের পক্ষ-বিপক্ষে যুক্তি দিয়ে স্ট্যাটাস দেয়ায় কবির হোসাইন নামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) এক ছাত্রলীগ নেতাকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হয়েছে। তিনি কবি জসীমউদদীন হল শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

গত শনিবার (৫ ডিসেম্বর) রাতে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বহিষ্কারের বিষয়ে জানানো হয়।

এতে বলা হয়েছে, সংগঠনের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের এক জরুরি সিদ্ধান্ত মোতাবেক জানানো যাচ্ছে যে, সংগঠনের নীতি-আদর্শ ও শৃঙ্খলা পরিপন্থী কার্যকলাপে জড়িত থাকায় কবির হোসাইনকে (যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, কবি জসীমউদদীন হল শাখা) ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হলো।

bohishkar-1

জানা গেছে, গত ১ ডিসেম্বর কবির হোসাইন তার ফেসবুক আইডিতে ভাস্কর্য নিয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন। সেখানে এক জায়গায় তিনি উল্লেখ করেন, মামুনুল হক যদি কুরআনের ভুল ব্যাখ্যা করে, তার কণ্ঠনালী কেটে দাও, যদি কুরআন ভাস্কর্যের বিরুদ্ধে কথা বলে, আল্লাহ এটাকে হারাম করে, তবে কোন বাপের বেটা এটাকে হালাল করার সাহস রাখে? কুরআনোর বিরোধিতা যেই করবে তার বিরুদ্ধে দাঁড়াতে ১ সেকেন্ডও অপেক্ষা করবে না ঈমানদাররা! হোক সে মামুনুল হক, মুজিব, জিয়া! হোক সে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, বাম বা জামায়াতি!

তিনি আরও উল্লেখ করেন, ইসলামের প্রতিনিধিত্ব রহিমুদ্দি, সলিমুদ্দি, কলীমুদ্দিরা করে না, স্বয়ং আল্লাহর রাসূল করেন! ইসলাম শিখতে হলে কুরআন হাদিসের জ্ঞান অর্জন করতে হবে, মনগড়া যুক্তি খাটবে না! একটা কথা মাথায় রাখবেন, আল্লাহর কোন আইন যদি আপনি না পালন করতে পারেন, সেটা অন্য কথা! তবে যদি তার কোন আইনের বিরোধিতা করা তো দূরের কথা, অস্বীকারও যদি করেন, আর নিজেকে যতই ঈমানদার দাবি করেন না কেন, মনে রাখবেন, আপনি খাঁটি মুসলমান না, পাক্কা মুনাফিক! আপনার বিরুদ্ধে লড়াই করাও খাঁটি মুসলমানের জন্য ফরজ!

Similar Posts

error: Content is protected !!